fbpx

শ্রেণী ও জাতি বর্ণের মধ্যে পার্থক্য নির্ণয় করো? 

প্রশ্নঃ শ্রেণী ও জাতি বর্ণের মধ্যে পার্থক্য নির্ণয় করো? 

ভূমিকা: Social stratification প্রত্যয়টি একটি সমাজতান্ত্রিক প্রত্যয়। ভূতত্ত্বে Strata প্রত্যয়টি মাটি বা শিলার বিভিন্ন স্তর (Strata) বুঝাতে ব্যবহৃত হয়। ভূতত্ত্বের এ প্রত্যয়টি সমাজের উঁচুনিচু বিভিন্ন শ্রেণি বা মর্যাদার মানুষকে বুঝাতে সমাজবিজ্ঞানে গৃহীত হয়েছে। স্তর প্রত্যয়টিকে সিঁড়ি বা মইয়ের ধাপের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। স্তরবিন্যাস বলতে বুঝায় যেভাবে স্তরগুলো সজ্জিত বা বিন্যস্ত। অতএব, সামাজিক স্তরবিন্যাস অর্থ সমাজের ব্যক্তি, গোষ্ঠী বা শ্রেণির উঁচুনিচু অবস্থান বা বিন্যাসব্যবস্থা। সামাজিক স্তরবিন্যাস মানবসমাজের প্রতিটি পর্যায়েই বিদ্যমান। সামাজিক স্ত রবিন্যাস সমাজে বিশিষ্ট স্থান দখল করে আছে। তাই সামাজিক স্তরবিন্যাস একটি সর্বজনীন ব্যাপার।

জাতি-বর্ণ ও শ্রেণির মধ্যে পার্থক্যসমূহ: জাতি-বর্ণ ও শ্রেণি দুটির ধারণা সমার্থক বলে মনে হলেও দুয়ের মধ্যে সুস্পষ্ট পার্থক্য লক্ষ করা যায়। নিম্নে জাতি-বর্ণ ও শ্রেণির পার্থক্য আলোচনা করা হলো:

আরো পড়ুনঃ ভারতীয় উপমহাদেশে ব্রিটিশ শাসনের প্রভাব আলোচনা কর

নংশ্রেণীজাতি বর্ণ
শ্রেণি হলো উন্মুক্ত (Open) ব্যবস্থা কোনো বিশেষ শ্রেণির সদস্য স্বীয় প্রচেষ্টায় বা অন্যকোনো উপায়ে অন্যকোন উচ্চ বা নিচ শ্রেণিতে লীন হতে পারে। এজন্যই শ্রেণি উন্মুক্ত ব্যবস্থা।জাতি-বর্ণ হলো একটা বদ্ধ ব্যবস্থা (Closed system)। অর্থাৎ, কোনো বিশেষ জাতি-বর্ণের সদস্য নীতিগতভাবে অন্যকোন জাতি-বর্ণের সদস্যতা অর্জন করতে পারে না। তার জন্ম এবং মৃত্যু একই জাতি- বর্ণের মধ্যেই সীমিত।
শ্রেণি বলতে আমরা বুঝি, কোনো এক মূল্যবোধের উপর নির্ভরশীল একটি গোষ্ঠী যা অন্যান্য জনগোষ্ঠী থেকে আলাদা।জাতি-বর্ণ বলতে আমরা বংশগত জনগোষ্ঠী বুঝি।
শ্রেণি ব্যবস্থা রক্ষণশীল সমাজের পরিচয় বহন করে না। শ্রেণি-বর্ণ ব্যবস্থার সমাজ ঐতিহ্যপ্রিয় নয়। শ্রেণিভিত্তিক সমাজ হলো প্রগতিশীল ও উন্নয়নশীল।জাতি-বর্ণ ব্যবস্থা রক্ষণশীল সমাজের পরিচয় বহন করে। জাতি-বর্ণ ব্যবস্থার সমাজ হয় ঐতিহ্যপ্রিয়। এ সমাজ ব্যক্তির স্বাধীন পেশা ও প্রয়াসকে সমর্থন দেয় না। সে কারণে জাতি-বর্ণ ব্যবস্থা উন্নতি ও প্রগতির অন্তরায় হিসেবে কাজ করে।
শ্রেণি একটি অন্তর্গোত্র বিবাহ-ভিত্তিক নয়। শ্রেণি এন্ডোগামাস নয়। কোনো বিশেষ শ্রেণির সদস্য নয় শ্রেণিতে বিবাহ করতে পারে।জাতি-বর্ণ হচ্ছে একটি অন্তর্গোত্র বিবাহভিত্তিক গোষ্ঠী। অর্থাৎ, জাতি-বর্ণ এন্ডোগামাস। এর অর্থ জাতি-বর্ণের কোনো সদস্যকে নিজ জাতি-বর্ণের মধ্যেই বিবাহ করতে হয়। ভিন্ন জাতি-বর্ণের মধ্যে বিবাহ সামাজিকভাবে নিষিদ্ধ।
শ্রেণিও সামাজিক অসমতার ধারক ও বাহক। শ্রেণি সামাজিক অসমতাকে স্থায়ী এবং পরিবর্তনীয় মনে করে।জাতি-বর্ণ সামাজিক অসমতার ধারক ও বাহক। জাতি-বর্ণ সামাজিক অসমতাকে স্থায়ী এবং অপরিবর্তনীয় মনে করে।

আরো পড়ুনঃ বাঙালি জাতির জনগোষ্ঠীর নৃগোষ্ঠীগত পরিচয় বিশদভাবে আলোচনা কর

উপসংহার: উপর্যুক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে পরিশেষে বলা যায় যে, বিভিন্ন প্রকার বৈষম্য ও দক্ষতার তারতম্যে শ্রেণি এবং আচার-আচরণ, বিশ্বাস ইত্যাদির কারণে জাতি-বর্ণের সৃষ্টি হয়েছিল। জাতি-বর্ণ ও শ্রেণির মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য লক্ষ করা যায়। এরা দুটি বিপরীতমুখী সামাজিক বিভাগ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

ফেসবুক পেইজ

কোর্স টপিক