Julius Caesar Bangla Summary (বাংলায়)

Julius Caesar Bangla Summary (বাংলায়)

তো আমরা এই নাটকের সম্পূর্ণ সামারি মাত্র পাঁচটা পয়েন্টে খুব সহজেই বুঝতে পারবো। 

১. জুলিয়াস সিজারের যুদ্ধ জয় এবং মৃত্যু

২. ক্যাসিয়াস ও অন্যদের সিজারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত

৩. জুলিয়াস সিজারকে হত্যা

৪. অ্যান্টোনিও এর ভাষনের মাধ্যমে রোমের মানুষের সত্য উপলব্ধি

ইউটিউবে ভিডিও লেকচার দেখুনঃ


৫. যুদ্ধ এবং চক্রান্তকারীদের পরাজয়

তো চলুন এবার মূল সামারি পয়েন্ট টু পয়েন্ট আলোচনা করা যাক।

১. জুলিয়াস সিজারের যুদ্ধ জয় এবং মৃত্যু 

44 খ্রিস্টপূর্বাব্দে, জেনারেল জুলিয়াস সিজার রুমের গৃহযুদ্ধে তার প্রতিদ্বন্দ্বী পম্পেইকে পরাজিত করেন এবং বিজয়ী হয়ে রোমে ফিরে আসেন। রাস্তা পার হওয়ার সাথে সাথে রোমানরা তার জন্য উল্লাস করে। কিন্তু সবাই তাকে স্বাগত জানায় না এবং ফ্ল্যাভিয়াস এবং মারুলাস নামে দুজন ভয় পায় যে, সিজার খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাই সে পুনরায় রোমে রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে পারে। সিজার জনসাধারণকে লুপারক্যালিয়া উৎসবে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত হয়। লুপারক্যালিয়া প্রাচীন রোমের একটি যাজকীয় উৎসব। প্রতি বছর 15 ফেব্রুয়ারিতে শহরকে শুদ্ধ করতে স্বাস্থ্য ও উর্বরতার বিষয়টা জনগণের মধ্যে প্রচার করার জন্য পালন করা হয় এই উৎসব। 

২. ক্যাসিয়াস ও অন্যদের সিজারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত

এদিন একজন জ্যোতিষী Artemidorus সিজারের কাছে আসেন এবং সিজারকে সতর্ক করে বলেন “মার্চের আইডস থেকে সাবধান”। সেটা হলো 15ই মার্চ। সিজার তাকে উপেক্ষা করে। তার কথায় খুব একটা গুরুত্বারোপ করে না। সিজারের বন্ধু ক্যাসিয়াস এবং ব্রুটাস নেতার ক্ষমতা নিয়ে আলোচনা করেন। ক্যাসিয়াস উদ্বিগ্ন যে সিজার একজন স্বৈরশাসক হয়ে উঠতে পারে। তিনি আশঙ্কা করেন যে, সিজারের একনায়কত্বের কারণে রোমান প্রজাতন্ত্র ধ্বংস হয়ে যাবে। ব্রুটাস ক্যাসিয়াসের উদ্বেগকে সমর্থন করে কিন্তু সিজারের প্রতি অনুগত থাকে। তলে তলে ক্যাসিয়াস সিজারকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে। সে কাসকা, ডেসিয়াস, ট্রেবোনিয়াস, লিগারিয়াস, মেটেলাস সিম্বার এবং অবশেষে ব্রুটাসকে ষড়যন্ত্রকারী হিসাবে তালিকাভুক্ত করে।  তারা সিজারের ঘনিষ্ঠ মিত্র অ্যান্টনিওকেও হত্যা করার পরিকল্পনা করে। কিন্তু ব্রুটাস এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। 

google news

আরো পড়ুন: Othello Bangla Summary (বাংলায় )

৩. জুলিয়াস সিজারকে হত্যা

এদিকে, সিজারের স্ত্রী ক্যালপুর্নিয়া একটি দুঃস্বপ্ন দেখে, যার মধ্যে সিজারের মৃত্যুর পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। সিজার তার স্ত্রীর এই স্বপ্নকে ভ্রান্ত ধারণা বলে। এরপর সে সিনেটে যায় ইডেস অফ দ্য মার্চ, মানে ১৫ই মার্চে। সিনেটে, সিজার মেটেলাস সিম্বারের আবেদন অর্থাৎ তার নিষিদ্ধ ভাইকে দেশে ফিরিয়ে আনার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে। এই মুহুর্তে, ষড়যন্ত্রকারীরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে সংকেত প্রদান করে এবং সিজারকে আক্রমণ করে। যখন ব্রুটাস আঘাত করে, তখন সিজার তার বন্ধুর বিশ্বাসঘাতকতায় হতবাক হয়ে বলে, ” Et tu, Brute ?” (“তুমিও, ব্রুটাস?”)

৪. অ্যান্টোনিও এর ভাষনের মাধ্যমে রোমের মানুষের সত্য উপলব্ধি

জুলিয়াস সিজার যেহেতু রোমে অনেক জনপ্রিয় ছিল, তাই তাকে হত্যা করার পরে জনগণ অনেক দাঙ্গা শুরু করে। জনগণকে শান্ত করতে চক্রান্তকারীরা একটা পরিকল্পনা করে। সিজারের লাশ নিয়ে তাকে হত্যাকারীদের চক্রান্ত বুঝতে পারেন অ্যান্টনি। অ্যান্টনি শোকাহত কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীদের বোঝান যে, তিনি জনসমক্ষে তাদের(ষড়যন্ত্রকারীদের) পক্ষ নেবেন।

সিজারের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় ব্রুটাস প্রথমে জনসম্মুখে ভাষণ দেন। তিনি জনতাকে বলেন যে, তিনি রোমের প্রতি ভালবাসা এবং সিজারের বিপজ্জনক উচ্চাকাঙ্ক্ষার ভয়ে সিজারকে হত্যা করেছিলেন। অর্থাৎ সিজার স্বৈরশাসক হয়ে উঠতো, এমন বিষয়ের প্রতি তিনি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। জনতা ব্রুটাসকে বিশ্বাস করে এবং তার সাথে একমত হয়। 

এর পরে কথা বলেন অ্যান্টনি। তিনি জনতাকে “বন্ধু, রোমান, দেশবাসী” বলে সম্বোধন করেন এবং তাদের অনুগ্রহ লাভ করেন এবং বলেন যে, সিজার একজন ভাল শাসক ছিলেন। তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে তাকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি সিজারের স্বৈরাচারী উচ্চাকাঙ্ক্ষার অভিযোগের বিরুদ্ধে একাধিক উদাহরণ দিয়েছেন। রোমের মানুষের জন্য জুলিয়াস সিজার কি কি করেছে, সেসব তুলে ধরতে থাকে।

অ্যান্টনির বক্তব্য ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে জনতাকে খেপিয়ে তোলে। ক্যাসিয়াস এবং ব্রুটাসকে এন্টনির বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য একটি সেনাবাহিনী গঠন করতে শহর থেকে বের করে দেওয়া হয়।

আরো পড়ুন: Measure for Measure Bangla Summary (বাংলায়)

৫. যুদ্ধ এবং চক্রান্তকারীদের পরাজয়

ইতোমধ্যেই অক্টাভিয়াস সিজার রোমে আসেন। অক্টাভিয়াস হলেন জুলিয়াস সিজারের ভাতিজা এবং দত্তক পুত্র। তিনি তার মহান চাচার উত্তরসূরি হিসাবে নিজের এমন নামকরণ করেছেন। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পরে, তিনি অ্যান্টনি এবং জেনারেল লেপিডাসের সাথে দেখা করেন। অক্টাভিয়াস, অ্যান্টনি এবং জেনারেল লেপিডাস ব্রুটাস এবং ক্যাসিয়াসের বাহিনীকে পরাজিত করে নিজেরা রোমে সুশাসন ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা করেন। এইভাবে, একটি জোট গঠিত হয় এবং ব্রুটাস এবং ক্যাসিয়াসের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে একটি গৃহযুদ্ধ ঘোষণা করা হয়।

যুদ্ধের প্রস্তুতির সময় ব্রুটাস ও ক্যাসিয়াসের মধ্যে ঝগড়া হয়। ক্যাসিয়াস ঘুষ গ্রহণকারী সৈনিককে শাস্তি দিতে অস্বীকার করেন। ব্রুটাস ভয় পায় যে তারা যদি সৎভাবে কাজ না করে তবে তারা সবাই দুর্নীতিতে জড়িয়ে যাবে এবং সিজারের মৃত্যু বৃথা যাবে। অবশেষে, দুজন আবার মিলিত হয়। ব্রুটাস দেখে যে তার স্ত্রী পোর্সিয়া ব্রুটাসের দীর্ঘ অনুপস্থিতির পর আত্মহত্যা করেছে।

পরে সেই রাতে, ব্রুটাস সিজারের ভূত দেখতে পায়। ভূত বলে যে, পরের দিন ব্রুটাস তাকে আবারও দেখতে পাবে – ফিলিপিতে, অ্যান্টনি, অক্টাভিয়াস এবং লেপিডাসের বাহিনীর সাথে যুদ্ধক্ষেত্রে।

ফিলিপিতে, যুদ্ধ শুরু হয়। ক্যাসিয়াসের বাহিনী দ্রুত পরাজিত হতে থাকে। ক্যাসিয়াস তার ভৃত্য পিন্ডারাসকে পাঠায় ব্রুটাসের সৈন্যরা যুদ্ধক্ষেত্রে কেমন লড়াই করছে, তা দেখতে। পিন্ডারাস খারাপ খবর নিয়ে আসে। যে বলে, ক্যাসিয়াসের বন্ধু এবং সহযোদ্ধা টিটিনিয়াসকে বন্দী করা হয়েছে। টিটিনিয়াস আসলে তার সৈন্যদের সাথে যুদ্ধক্ষেত্রের এক সাইডে তার জয়ের জন্য বিজয় উদযাপন করছিল। কিন্তু পিন্ডারাস এবং ক্যাসিয়াস তাদের অনেক দূর থেকে দেখেছিল তাই বুঝতে পারেনি। ক্যাসিয়াস হতাশায় পিন্ডারাসকে বলে পিন্ডারাস যেন তাকে হত্যা করে। তবুও সে পরাজয় বরণ করবে না। ক্যাসিয়াসের কথামতো পিন্ডারাস তাকে হত্যা করে।

এদিকে ব্রুটাস লড়াই চালিয়ে যায়। তবে এক পর্যায়ে সেও বিরোধীদের কাছে হেরে যায়। অ্যান্টনিও সৈন্যদের ব্রুটাসকে জীবিত ধরে আনার জন্য বলে। ব্রুটাস ক্রীতদাস হিসাবে রোমে ফিরে যাওয়ার পরিবর্তে তার তলোয়ার দিয়ে নিজেকেই হত্যা করে। এই নাটকটা এভাবে শেষ হয় যে, এন্টোনিও ব্রুটাসের লাশের কাছে এসে তার প্রশংসা করে। কারণ অন্যরা জুলিয়াস সিজারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করলেও, ব্রুটাস শুধুমাত্র রোমের মানুষের ভালোর কথা চিন্তা করেই জুলিয়াস সিজারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে অন্তর্ভুক্ত ছিল এবং তাকে হত্যা করেছিল।

আরো পড়ুন: King Lear Bangla Summary (বাংলায়)

Key Facts

  • Writer: William Shakespeare (1564-1616)
  • Written Time: 1599-1600
  • Published date: 1623
  • Full Title: The tragedy of Julius Caesar.
  • Genre: Tragedy
  • Acts:(V)
  • Setting: Time Setting: 44 BC
  • Place Setting: Rome
  • Symbols: fire, Brutus, crown, lions, Caesar’s blood.
  • Themes: Fate and free will, Public self vs private self, misinterpretations and misreadings, inflexibility vs compromise, rhetoric vs power, ethics vs politics, tyranny, honour, and misuse of power.

Characters

Main Characters

  1. Julius Caesar: Good- A great Roman general and senator.
  2. Brutus:(Good and diversified by Cassius)- a supporter of the Republic. The tragic hero of the play.
  3. Cassius: (Bad)- Talented general. A long acquaintance of Caesar.
  4. Antony:(Good)- Caesar’s friend. Took revenge after Caesar’s death.

Secondary Characters

  1. Casca: (Bad)- One of the assassins of Julius Caesar
  2. Portia:(Good)- Brutus’s wife.
  3. Calpurnia:(Good)- Caesar’s wife.

Minor Characters

  1. Octavius: (Good)- Caesar’s great-nephew and his chosen heir
  2. Artemidorus:(Good)- Artemidorus writes a letter to Caesar to warn him of his upcoming assassination.
  3. Pindarus: He is a slave who helps his master Cassius kill himself to avoid being taken prisoner by Mark Anthony.
  4. Strato: He is a soldier in Brutus’s army. He kills Brutus by his order.

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

ফেসবুক পেইজ

কোর্স টপিক